বুধবার , ১৫ মে ২০২৪ | ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. ক্যারিয়ার
  4. খেলাধুলা
  5. জাতীয়
  6. তরুণ উদ্যোক্তা
  7. ধর্ম
  8. নারী ও শিশু
  9. প্রবাস সংবাদ
  10. প্রযুক্তি
  11. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  12. বহি বিশ্ব
  13. বাংলাদেশ
  14. বিনোদন
  15. মতামত

‘আততায়ী’র গুলি, স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী ফিকো সংকটাপন্ন

প্রতিবেদক
bdnewstimes
মে ১৫, ২০২৪ ১১:২৯ অপরাহ্ণ


আন্তর্জাতিক ডেস্ক

স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী রবার্ট ফিকো এক বন্দুকধারীর গুলিতে গুরুতর আহত হয়েছেন। প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে তার অস্ত্রোপচার চলছে। দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, তার অবস্থা সংকটাপন্ন। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসসহ বিশ্বনেতারা।

পুলিশ বলছে, বুধবার (১৫ মে) স্লোভাকিয়ার মধ্যাঞ্চলের হ্যান্ডলোভা নগরীতে আততায়ীর হাতে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ফিকো। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ এক ব্যক্তিকে আটক করেছে বলে জানিয়েছেন দেশটির বিদায়ী প্রেসিডেন্ট জুজানা কাপুতোভা। তবে ওই ব্যক্তির নাম-পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি।

বিবিসি, গার্ডিয়ান ও রয়টার্সের খবরে বলা হয়, ফিকো সরকারি একটি বৈঠকে যোগ দিতে হ্যান্ডলোভা গিয়েছিলেন। সেখানেই অজ্ঞাত বন্দুকধারী তাকে একাধিকবার গুলি করে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে প্রথমে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে হেলিকপ্টারে করে বানস্কা বাইস্ত্রিকায় নিয়ে যাওয়া হয়।

৬০ বছর বয়সী ফিকো গত বছর চতুর্থ মেয়াদে স্লোভাকিয়ার নির্বাচিত হন। ২০০৬ সালে তিনি প্রথমবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন। ২০১০ সাল পর্যন্ত পূর্ণ মেয়াদে দায়িত্ব পালনের পর বিরোধী দলীয় নেতা ছিলেন তিনি। পরে ২০১২ ও ২০১৬ সালের নির্বাচনে দ্বিতীয় ও তৃতীয়বারের মতো তিনি প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন। তবে মেয়াদ পূরণ না করে ২০১৮ সালে তিনি পদত্যাগ করেন। সর্বশেষ গত বছরের ২৫ অক্টোবর চতুর্থবারের মতো ফিরো স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেন।

স্লোভাকিয়ার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও মন্ত্রীরা বলছেন, ফিকোর ওপর এই হামলার পেছনে রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব কাজ করে থাকতে পারে। স্লোভাক প্রেসিডেন্ট জুজানা কাপুতোভা এই হামলাকে গণতন্ত্রের ওপর হামলা হিসেবে অভিহিত করেছেন।

এদিকে ফিকোর শারীরিক অবস্থার তথ্য জানিয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রবার্ট কালিনাক বলেন, সাড়ে তিন ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে তার অস্ত্রোপচার চলছে। পরিস্থিতি জটিল। পরে চিকিৎসকরা বিস্তারিত জানাবেন।

স্লোভাকিয়ার জনগণ সহিষ্ণুতার সংস্কৃতিতে বিশ্বাসী এবং সবসময় মতবিনিময়ের চর্চা করে থাকে উল্লেখ করে কালিনাক বলেন, আজ যা ঘটেছে তা আমাদের সঙ্গে যায় না। এই দুঃসহ স্মৃতি দীর্ঘ দিন আমাদের তাড়িয়ে নিয়ে বেড়াবে। তবে আমরা এখন আপাত শুধু প্রধানমন্ত্রী রবার্ট ফিকোর কথাই ভাবছি। আমরা আশা করছি, তিনি এ পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসার মতো যথেষ্ট শক্তিশালী।

ফিকোর ওপর হামলা একজন প্রত্যক্ষদর্শী রয়টার্সকে বলেন, তিনি বেশ কয়েকটি গুলির শব্দ পেয়েছেন। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ এক ব্যক্তিকে আটক করেছে এবং নিরাপত্তা কর্মকর্তারা তাকে গাড়ির ভেতর তুলে নিয়ে চলে গেছে।

স্লোভাকিয়া সরকারের এক বিবৃতিতে জানানো হয়, হ্যান্ডলোভায় একটি বৈঠক করতে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী রবার্ট ফিকো। যেখানে তার ওপর গুপ্ত হামলা হয়েছে। রাজধানী ব্রাতিস্লাভা থেকে হ্যান্ডলোভার দূরত্ব অনেক বেশি হওয়ায় তাকে হেলিকপ্টারে করে বানস্কা বাইস্ত্রিকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো বলছে, প্রধানমন্ত্রী ফিকোর দিকে চারটি গুলি ছোড়া হয়। তার পেটে গুলি লেগেছে। পরে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাতুস সুতাজ ইস্তক বলেন, পাঁচটি গুলি করা হয়েছিল ফিকোকে। তিনি এখন অত্যন্ত সংকটাপন্ন অবস্থায় রয়েছেন। এই হামলা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মনে হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর ওপর হামলা গণতন্ত্র এবং খোদ এই রাষ্ট্রের ওপরই হামলার সমতুল্য।

সারাবাংলা/টিআর





Source link

সর্বশেষ - খেলাধুলা