বৃহস্পতিবার , ২৫ মে ২০২৩ | ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. ক্যারিয়ার
  4. খেলাধুলা
  5. জাতীয়
  6. তরুণ উদ্যোক্তা
  7. ধর্ম
  8. নারী ও শিশু
  9. প্রবাস সংবাদ
  10. প্রযুক্তি
  11. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  12. বহি বিশ্ব
  13. বাংলাদেশ
  14. বিনোদন
  15. মতামত

আমার মা জিতেছে, রেজাল্ট ঘুরিয়ে দেওয়ার ষড়যন্ত্র হচ্ছে: জাহাঙ্গীর

প্রতিবেদক
bdnewstimes
মে ২৫, ২০২৩ ৯:৩৩ অপরাহ্ণ


ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদের স্বতন্ত্র প্রার্থী জায়েদা খাতুন ‘সব কেন্দ্রের মোট ফলাফলে জয়লাভ করেছেন’ বলে দাবি করছেন তার ছেলে সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলম।

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) রাত সোয়া ৮টার দিকে জয়দেবপুরে বঙ্গতাজ মিলনায়তনে ফলাফল পরিবেশন কেন্দ্র তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ফল প্রকাশে বিলম্বের মাধ্যমে ‘জনরায় উল্টে দেওয়ার ষড়যন্ত্র হচ্ছে’ বলে তার সন্দেহ।

বিকেল ৪টায় ভোট শেষ হওয়ার চার ঘণ্টারও বেশি সময় পরে জাহাঙ্গীর যখন সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

গাজীপুর সিটি করপোরেশন (গাসিক) নির্বাচনে মোট ৪৮০ ভোট কেন্দ্রের মধ্যে বেসকারিভাবে ১০১ কেন্দ্রের ফলাফল জানা গেছে। ওই ১০১ কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়া নৌকার প্রার্থী আজমত উল্লা ভোট পেয়েছেন ৪৩ হাজার ৯৭ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী টেবিল ঘড়ি মার্কায় স্বতন্ত্র প্রার্থী জায়েদা খাতুন পেয়েছেন ৫৫ হাজার ৪০৭ ভোট।

প্রাপ্ত ফল অনুযায়ী— ৭ হাজার ৩১০ ভোটে আজমত উল্লার চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন জায়েদা খাতুন।

এমন পরিস্থিতিতে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘দিনে ভোট হয়েছে, দিনে রেজাল্ট নিয়ে যেতে চাই। আমি সব সেন্টারে খবর নিয়েছি; আমার মা জিতে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘আমি রিটার্নিং অফিসারের অফিসে গিয়েছিলাম, কেন সে দেরি করতেছে? তাড়াতাড়ি যেন রেজাল্টটা দিয়ে দেয়। আমার রেজাল্ট যদি সঠিকভাবে এখানে না দেওয়া হয়। তাদের কাছে যে রেজাল্ট শিট আছে সেটি যদি এখানে প্রয়োগ না করা হয় তাহলে তো বুঝতেই পারছেন এখানে কী হচ্ছে?’

২০১৮ সালের নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থীকে হারিয়ে গাজীপুরের মেয়র হয়েছিলেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম। কিন্তু মেয়র থাকাকালেই বিতর্কিত বক্তব্যের জেরে তাকে দলীয় পদ হারাতে হয়। তবে নির্বাচনের আগে দল থেকে ক্ষমা পান।

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ায় জাহাঙ্গীরকে আবারও বহিষ্কার করেছে আওয়ামী লীগ। ঋণ খেলাপির অভিযোগে নির্বাচন কমিশন তার প্রার্থিতা বাতিল করে। হাইকোর্টে গিয়েও প্রার্থিতা ফেরত পাননি জাহাঙ্গীর।

নিজের সঙ্গে মায়ের জন্যও স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন জাহাঙ্গীর। তার মা জায়েদা খাতুনের প্রার্থিতা টিকে যাওয়ায় তিনি মায়ের পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছেন।

জাহাঙ্গীর বলেন, ‘ইভিএম পদ্ধতি আধুনিক, এটিকে আমরা সাপোর্ট করেছি। সেই হিসাবে ইভিএমের যে প্রিন্ট কপিটি বের হয় সেটি যেন আমাদের দেওয়া হয়।’

উত্তরে রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, ‘ঠিক আছে আপনারা বসেন। আমাদেরকে সহযোগিতা করেন।’

জাহাঙ্গীর সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রত্যেকটি সন্তানকে বলছি, বাপ ভাইকে বলছি, নারীর ভোট নিয়ে কেউ যেন ছিনিমিনি না খেলে। আমার মা এই শহরকে রক্ষা করবে বলেছে। আজকে সত্যের জয় হয়েছে, মিথ্যা ধ্বংস হয়েছে। সত্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।’

সারাবাংলা/একে





Source link

সর্বশেষ - খেলাধুলা