বুধবার , ২৩ আগস্ট ২০২৩ | ৬ই আশ্বিন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ক্যারিয়ার
  5. খেলাধুলা
  6. জাতীয়
  7. তরুণ উদ্যোক্তা
  8. ধর্ম
  9. নারী ও শিশু
  10. প্রবাস সংবাদ
  11. প্রযুক্তি
  12. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  13. বহি বিশ্ব
  14. বাংলাদেশ
  15. বিনোদন

বঙ্গবন্ধু না থাকলে বাংলাদেশের অস্তিত্ব থাকতো নাঃ হানিফ

প্রতিবেদক
bdnewstimes
আগস্ট ২৩, ২০২৩ ৪:০২ অপরাহ্ণ

শশী,জবি প্রতিনিধি:
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন,বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশ সমর্থক শব্দ। বঙ্গবন্ধু ছাড়া বাংলাদেশের অস্তিত্ব ছিলো না।জিয়া বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডে সরাসরি যুক্ত ছিলো। জিয়া মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন পাকিস্তানি এজেন্ট হিসাবে। জিয়া বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে দিতে চেয়েছিলো।বিএনপির অনেক নেতা এখন মায়া কান্না করেন,মানবতার দোহায় দেন। যখন ১৫ আগষ্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিলো তখন কোথায় ছিলো তাদের মানবতা?
বুধবার (২৩ আগষ্ট) জাতীয় শোক দিবস-২০২৩ উপলক্ষে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নীলদলের আয়োজনে সকাল ১০ টায় কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে ‘বঙ্গবন্ধুর রক্তের ঋণ:স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধুকন্যার অঙ্গীকার’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এই মন্তব্য করেন এই নেতা।
মাহবুব উল আলম হানিফ আরো বলেন,বঙ্গবন্ধু হত্যার মধ্যে দিয়ে শুধু বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয় নাই,হত্যা করা হয়েছে আমাদের জাতি সত্তাকে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে সমাজে বিভাজন করা হয়েছে,আর সেই বিভাজনের ফলে দেশের উন্নয়ন বারবার হোঁচট খাচ্ছে।
তিনি আরো বলেন,২০০৪ সালে ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলাতেও জিয়ার অপশক্তি দায়।বেগম খালেদা জিয়া এবং তারেক জিয়ার নেতৃত্বে গ্রেনেড হামলা চালানো হয়।
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নীলদলের সভাপতি অধ্যাপক ড. মোঃ নূরে আলম আব্দুল্লাহ এর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল-আলম হানিফ এবং সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ।
‘বঙ্গবন্ধুর রক্তের ঋণ:স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধুকন্যার অঙ্গীকার’ শীর্ষক আলোচনা সভায় মুখ্য আলোচক হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন। এছাড়া উক্ত সভায় বক্তব্য প্রদান করেন নীলদলের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড.মো.জাকারিয়া মিয়া।
আলোচনা সভার শুরুতে ১৫’ আগস্টে নিহতদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নীলদলের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড.মো.মমিন উদ্দিন এবং মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক মো.মেফ্তাহুল হাসান।
এসময় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, এক বড় ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ঘাতক দালালরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে। তারা চেয়েছিলো আওয়ামী লীগকে নির্মূল করতে,তাই তারা ১৫ আগস্ট রাতে ধানমণ্ডির ৩২ নাম্বার বাড়িতে এক নৃশংস হত্যাকাণ্ড চালিয়ে বঙ্গবন্ধুসহ তার পরিবারকে হত্যা করে।কিন্তু বঙ্গবন্ধুর কন্যা দেশে ফিরে আওয়ামী লীগের হাল ধরে দেশকে নিয়ে গেছেন এক অনন্য উচ্চতায়।আওয়ামী লীগ অস্প্রদায়িকতায় বিশ্বাসী বলেই সবাই এখন আওয়ামী লীগকে ভালোবাসে। বঙ্গবন্ধুও চেয়েছিলেন এক অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ।বঙ্গবন্ধুর কন্যার উন্নয়ন দেখাতে হলে শুধু পদ্মা সেতুই যথেষ্ট।
আলোচনাসভায় জবি ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ইব্রাহিম ফরাজি, সাধারণ সম্পাদক এস এম আকতার হোসাইন বিভিন্ন অনুষদের ডিন, ইনস্টিটিউটের পরিচালক, বিভাগীয় চেয়ারম্যানবৃন্দ, প্রক্টর, শিক্ষক, কর্মকর্তা, সাংবাদিক প্রতিনিধিবৃন্দ ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ - খেলাধুলা