সোমবার , ১৬ অক্টোবর ২০২৩ | ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. ক্যারিয়ার
  4. খেলাধুলা
  5. জাতীয়
  6. তরুণ উদ্যোক্তা
  7. ধর্ম
  8. নারী ও শিশু
  9. প্রবাস সংবাদ
  10. প্রযুক্তি
  11. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  12. বহি বিশ্ব
  13. বাংলাদেশ
  14. বিনোদন
  15. মতামত

‘মাতারবাড়ি হবে এশিয়ার সমুদ্র বাণিজ্যের মূলকেন্দ্র’

প্রতিবেদক
bdnewstimes
অক্টোবর ১৬, ২০২৩ ১২:১৯ অপরাহ্ণ


স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: বাংলাদেশের একমাত্র গভীর সমুদ্রবন্দর মাতারবাড়ি দক্ষিণ এশিয়ার সমুদ্র বাণিজ্যের অন্যতম মূলকেন্দ্র হিসেবে গড়ে উঠবে বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

রোববার (১৫ অক্টোবর) সকালে চট্টগ্রামে ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউটের (এনএমআই) ২৫তম ও এনএমআই, মাদারীপুরের ১৪তম ব্যাচের প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানিয়েছেন।

মাদারীপুরে আরও একটি ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউটের কাজ সম্পন্ন হয়েছে জানিয়ে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের এখন গ্লোবাল ওয়ার্ল্ডের সঙ্গে তালে তাল মিলিয়ে নাবিকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হচ্ছে। আমাদের ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউট আন্তর্জাতিক নৌ-সংস্থার নিয়ম দ্বারা পরিচালিত। শিপিং সেক্টর দক্ষ মানব সম্পদ সৃষ্টির লক্ষ্যে ট্রেনিং ইনস্টিটিউটসহ সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউটের ১৪তম ব্যাচের প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হচ্ছে।’

তিনি জানান, ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউট, চট্টগ্রামের নিয়ন্ত্রণে মাদারীপুরে আরও একটির স্থাপনা নির্মাণ ও যন্ত্রপাতি সংগ্রহের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। শিগগরিই মাদারীপুর সেই ইনস্টিটিউট উদ্বোধন করা হবে। সেখানে ৩০০ জন করে দুই ব্যাচে প্রতি বছর ৬০০ জনকে প্রশিক্ষণ দেওয়া যাবে।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউট, কুড়িগ্রাম, রাজশাহী, দিনাজপুর এবং মেহেরপুর স্থাপনের কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে। যা আগামী ২০২৫ সালের মধ্যে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে। এর মধ্যে দিয়ে বিশ্বে প্রশিক্ষিত নাবিকদের যে চাহিদা সেটা পূরণে বাংলাদেশ অন্যতম ভূমিকা পালন করবে।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের নাবিকরা সারাবিশ্বে সাহসিকতার সঙ্গে তাদের দায়িত্ব পালন করেছে। আমরা জাতি হিসেবে একটি গর্বিত জায়গায় অবস্থান করছি। করোনা মহামারিতে মেরিটাইম সেক্টরে বাংলাদেশের নাবিকরা যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে সেটা নিয়ে আমরা অহংকার করি তাদের নিয়ে।’

নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সমুদ্রসীমা নিরাপদভাবে চলাচলের জন্য উপযোগী ছিল না। আপনারা জানেন মিয়ানমার ও ভারতের সঙ্গে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে কূটনৈতিকভাবে যুদ্ধ করে সমুদ্রে আমাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করেছি। আমাদের চলাচলে আর কোনো বাধা নেই।’

দুই বছরের মধ্যে মোংলা বন্দর চট্টগ্রামের মতো সমপরিমাণ সক্ষমতা অর্জন করে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা পালন করবে জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘চট্টগ্রাম বন্দর আন্তর্জাতিকভাবে সক্ষমতার দিক দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। মোংলা বন্দর আপডেটগ্রেশন করছি। আগামী দুই বছরের মধ্যে মোংলা বন্দর চট্টগ্রামের মতো সমপরিমাণ সক্ষমতা অর্জন করে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা পালন করবে। শুধু তাই নয়, আমাদের গভীর সমুদ্রবন্দর মাতারবাড়ি আজ ব্যাপকভাবে অর্থনৈতিক হাতছানি দিচ্ছে। মাতারবাড়ি শুধু এ দেশেই নয় দক্ষিণ এশিয়ায় মেরিটাইম সেক্টরের হাব হিসেবে গড়ে উঠবে।’

এ সময় নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোস্তফা কামাল, অধিদফতরের মহাপরিচালক কমডোর মো. মাকসুদ আলম ও এনএমআইর অধ্যক্ষ ক্যাপ্টেন আতাউর রহমান বক্তব্য দেন।

সারাবাংলা/আইসি/পিটিএম





Source link

সর্বশেষ - খেলাধুলা