মঙ্গলবার , ২৬ অক্টোবর ২০২১ | ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. ক্যারিয়ার
  4. খেলাধুলা
  5. জাতীয়
  6. তরুণ উদ্যোক্তা
  7. ধর্ম
  8. নারী ও শিশু
  9. প্রবাস সংবাদ
  10. প্রযুক্তি
  11. প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  12. বহি বিশ্ব
  13. বাংলাদেশ
  14. বিনোদন
  15. মতামত

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিচারে ট্রাইব্যুনাল গঠনের দাবি

প্রতিবেদক
bdnewstimes
অক্টোবর ২৬, ২০২১ ৯:১৫ অপরাহ্ণ


ঢাবি করেসপন্ডেন্ট

দেশব্যাপী সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পূজা মণ্ডপ, প্রতিমা, মন্দির, আশ্রম, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট, অগ্নিসংযোগ ও হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। স্মারকলিপিতে বিশেষ ট্রাইবুনাল গঠন করে হামলায় জড়িতদের বিচারের আওতায় আনা, নিহতদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়াসহ চারটি জরুরি পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানিয়েছে শিক্ষক সমিতি।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের হাতে স্মারকলিপিটি তুলে দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. রহমত উল্লাহ এবং সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মো. নিজামুল হক ভূঁইয়া। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক ড. আবুল মনসুর আহম্মদ, অধ্যাপক ড. হুমায়ুন কবির, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক এম কে এম গোলাম রব্বানীসহ শিক্ষক সমিতির কয়েকজন কার্যনির্বাহী সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

সম্প্রতি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ওপর ঘটে যাওয়া হামলার ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে স্মারকলিপিতে বলা হয়, সম্প্রতি কুমিল্লার একটি পূজা মণ্ডপে পবিত্র কোরআন অবমাননার কথিত ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন স্থানে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পূজা মণ্ডপ, প্রতিমা, মন্দির, আশ্রম, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট, অগ্নিসংযোগ ও হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। সহিংসতার কারণ ও আক্রমণের তীব্রতা উপলব্ধির উদ্দেশ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি গত ১৮ অক্টোবর কুমিল্লা ও চৌমুহনীতে হামলার শিকার পূজা মণ্ডপ, মন্দির, আশ্রম, ব্যবসা ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করে এবং আক্রান্ত পরিবার, বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলে।

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিচারে ট্রাইব্যুনাল গঠনের দাবি

স্থানীয় প্রশাসনের সমন্বয়হীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির অনৈক্যের সুযোগে হামলার পরিকল্পনা নির্বিঘ্নে বাস্তবায়িত হয়েছে উল্লেখ করে স্মারকলিপিতে বলা হয়, ‘ষড়ন্ত্রকারীরা নির্বিঘ্নে এ হীন পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হয়েছে। এ ঘটনায় সর্বস্তরের জনগণের মধ্যে ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে।’

এ ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড ও অস্থিতিশীলতার পুনরাবৃত্তি রোধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি চারটি পদক্ষেপ নিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি জোর দাবি জানিয়েছে। দাবিগুলো হলো—

১. স্থানীয় প্রশাসনের সমন্বয়হীনতার যে অভিযোগ উত্থাপিত হয়েছে, তা তদন্ত করা। এক্ষেত্রে কারও কোনো অবহেলা বা শিথিলতা থাকলে তা চিহ্নিত করে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা;

২. হামলার ঘটনায় নিহতদের পরিবার, পূজা মণ্ডপ, আশ্রম, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের যথাযথ ক্ষতিপূরণ দেওয়া;

৩. এ ধরনের ঘটনা রাষ্ট্রদ্রোহিতার সামিল বিবেচনায় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে অপরাধীদের বিচারের ব্যবস্থা করা এবং দ্রুততম সময়ের মধ্যে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা; এবং

৪. ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের নামে যেকোনো সহিংসতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পরিপন্থি যেকোনো অপতৎপরতা রোধে সর্বাত্মক সতর্কতা এবং আইনের শাসন নিশ্চিত করার উদ্যোগ নেওয়া।

সারাবাংলা/আরআইআর/টিআর





Source link

সর্বশেষ - খেলাধুলা